Home | Profile | Credit History | Withdraw Details | Withdraw | Apps | FB Group | Login | Registration
Are You New? Please Visit: How To Work..
যে সব কারণে আইডি ব্যান করা হবে ..বিস্তারিত..
User IP - 34.204.193.85
Please Go "How to Work" page If you are New in this site...

Today's Working Rate is 1$ for 680 Credit | Dollar Rate : 1$ =80 TK | Minimum Withdraw 10 TK Only for Mobile Recharge

My Task


Read This News ↓
Go Down For Collect Your Credit ↓
ডায়াবেটিস হতে রক্ষার উপায় CAJBD News-cajbd.com

ডায়াবেটিস হতে রক্ষার উপায় CAJBD News-cajbd.com

হওয়ার আগেই সাবধানতা

ডায়বেটিস নামটি বর্তমানে সারা বিশ্বের জন্যে একটি আতংকপূর্ণ সাথে অতি পরিচিত একটু রোগ।কেননা বর্তমানে সারা বিশ্বে প্রায় ১০০ কোটির বেশি মানুষ ডায়বেটিস এ আক্রান্ত।আবার এর মধ্যে প্রায় ৬০% রোগী হচ্ছে মধ্যবয়স্ক এবং বাকিদের মধ্যেই রয়েছে প্রাপ্তবয়স্ক এমনকি অল্পবয়স্ক ছেলেমেয়েও।সাধারনত রক্তে গ্লুকোজের পরিমান প্রয়োজনের চেয়ে বেড়ে গেলে এবং শরীর সেগুলোকে ভাংতে ব্যার্থ হলেই ডায়বেটিস হয়ে। এর কারন ২ রকম হতে পারে একটি হচ্ছে দেহের অগ্নাশয় থেকে পর্যাপ্ত পরিমান ইনসুলিন হরমোন প্রোডাকাশন না হওয়া বা হলেও ঠিক মত সেটি কাজ করে না।আবার আরেকটি হতে পারে যে অগ্নাশয়ের ইনসুলিন উৎপাদনের কোষগুলো নষ্ট হয়ে যেতে পারে যেকোন কারনেই। এদের ভিত্তিতে ডায়বেটিস কে ২ ভাবে ভাগ করা হয়ে থাকে।যেমন: যে ক্ষেত্রে ইনসুলিন উৎপাদন একদম বন্ধ হয়ে যায় সেটি হলো টাইপ 1 ডায়বেটিস।আক্রান্ত রোগিদের ১০%-১৫% এই প্রকারের ডায়বেটিসের শিকার হয়ে থাকেন।এবং যে ক্ষেত্রে ইনসুলিন উৎপাদন কম হয় কিংবা হলেও ঠিকভাবে কাজ করে না সেক্ষেত্রে সেটিকে টাইপ 2 ডায়বেটিস মেলাইটিস বলা হয়ে থাকে।যেহেতু সবাই এ সম্পর্কে অবগত যে ডায়বেটিস একটি ক্রনিক ডিজিজ।এটি একবার হলে এর কোন পারমানেন্ট কিউর নেই বরং সারাজীবনই এর জন্যে নিয়মিত কিছু নিয়মকানুন মেনে সেই প্রক্রিয়ায় জীবন যাপন করতে হবে।তাই আমাদের সকলেরই উচিত ডায়বেটিস হওয়ার পর নিয়মকানুন সম্পন্ন জীবন যাপনের চেয়ে এটিকে হওয়ার আগেই প্রতিরোধ করে তুলা।তবে যেহেতু এটি একটি জিনগত,বংশগত রোগ তাই এর ঝুকি যেকোন ব্যাক্তির থাকা স্বাভাবিক তাই সেক্ষেত্রে এটিকে নিয়ন্ত্রনের জন্যে আগে থেকেই পূর্বপ্রস্তুতি নিতে হবে। এর জন্য আমাদের যা করতে হবে ----

১.সুস্থ অবস্থাতেই নিয়মিত হাটা চলা ব্যায়াম ইত্যাদির অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে।শারীরিকভাবে নিজেকে ফিট রাখতে হবে সর্বদা।অল্পতেই যেন ক্লান্তি না আসে সেদিকে কঠোরভাবে নজর দিতে হবে।কারন ডায়বেটিস রোগীদের এটি একটি অন্যতম লক্ষন।তাই নিয়মিত ব্যায়াম ও শারিরিক কসরত করে নিজেকে ফিট রাখতে হবে যেন সহজেই দূর্বলতা না আসে।শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রনে রাখার মাধ্যমেও নিজেকে শারীরিকভাবে ফিট রাখা যেতে পারে তাই ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রনে শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রন ও প্রত্যক্ষ ভাবে ভুমিকা পালন করে থাকে।

২.ব্লাড সুগার লেভেল কে অগ্রাধিকার দিয়ে নিয়ন্ত্রনে রাখতে হবে।খাবারে আগে থেকেই যত অল্প মাত্রায় সুগার এড করা যায় ততই ভাল ফল হবে সেটির।এবং ভিটামিস সি সমৃদ্ধ খাবার খেয়ে দেহের রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে তুলতে হবে যাতে ব্লাড সুগার এর মাত্রা নিয়ন্ত্রনে থাকে।চিনি এবং মিষ্টি জাতীয় খাবার অল্প পরিমানে খেতে হবে। মিষ্টি জাতীয় খাবার এর উপর নিয়ন্ত্রন ডায়বেটিস হওয়া থেকে বাচাতে অন্যরকম ভূমিকা পালন করে থাকে।

৩.ফ্যাট জাতীয় খাবার এর উপর ও নিয়ন্ত্রন আনতে হবে।যেসব খাবার শরীরে মেদ জমাতে সাহায্য করবে সেসব পরিহার করে খাদ্যাভাসে সল্প মেদ এবং স্বাস্থ্যসম্মত খাবার যোগ করতে হবে। মনে রাখতে হবে খাদ্যাভাসের উপর নিয়ন্ত্রন আনাই ডায়বেটিস প্রতিরোধ এর অনেক কার্যকরী উপায়।

CAJBD News, CAJBD Bangla News



Developed by: Sakil Suva
        If You Have Any Questions feel free to ask us